Goodman Travels

ঈশ্বরদী ১ নং সাঁড়া ইউনিয়নে নৌকা মার্কাকে বিজয় করার লক্ষ্যে যুবলীগের নির্বাচনী পরিচালনা সম্মেলন অনুষ্ঠিত

মো: ইয়াছিন শেখ ঈশ্বরদী প্রতিনিধি :
মঙ্গলবার (১৬ই সেপ্টেম্বর) সন্ধার সময় ঈশ্বরদী উপজেলা ১ নং সাঁড়া ইউনিয়ন যুবলীগের নির্বাচনী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে । সাঁড়া ইউনিয়ন যুব লীগের বর্ধিত সভায় পাবনা ৪ আসনের উপ -নির্বাচনে যুব লীগের সকল নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে ২৬ তারিখে নৌকা মার্কাকে বিজয় করার লক্ষ্যে যুব লীগের বর্ধিত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সাঁড়া ইউনিয়ন যুব লীগের সম্মেলন সাঁড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও যুব লীগের সকল নেতা কর্মী দের সাথে নিয়ে নির্বাচনী পরিচালনা কর্যক্রম সুষ্ঠ ভাবে দেখভাল করার লক্ষ্যে, নির্বাচনকে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনা জন্য আজকে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সাঁড়া ইউনিয়ন যুব লীগের নির্বাচনী পরিচালনা সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন পাবনা জেলা যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শিবলী সাদিক।

শিবলী সাদিক তার বক্তৃতায় বলেন সাঁড়া ইউনিয়ন ঈশ্বরদীর একটি প্রাচীন নগরী, এটি ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভোট ব্যাংক বলা হয়।
সাঁড়া ইউনিয়ন হচ্ছে একটি ঐতিহাসিক জায়গা। যেখানে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসাবে পরিচিত। তিনি আরো বলেন পাবনা ঈশ্বরদী আজ বিশ্বের রোল মডেল। এই ঈশ্বরদীতে বাংলাদেশের একমাত্র পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি হচ্ছে। এটি অবস্থিত, ও দৃশ্যমান। এই উপজেলার মানুষ সবাই জানে সুতরাং জননেত্রী শেখ হাসিনা যে উন্নয়নের চিত্র আমরা পাবনা বাসী ততটা না কাছ থেকে দেখেছি তার চেয়ে আপনারা এই উপজেলার ৭ ইউনিয়নের মানুষ তারচেয়ে বেশি কাছ থেকে দেখেছেন। এবং এই সাঁড়া বাসী কাছ থেকে দেখে দেখে আজ অবস্ত হয়ে গেছেন।

নৌকার ভোটের জন্য মা বোন দেন কাছ থেকে ভোট চাইতে হয় না, তবে বোঝাতে হবে নৌকার যে উন্নয়নের ধারা, নৌকা মার্কায় ভোট দিলে এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। তাই আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিবেন।

তিনি আরো বলেন আপনি সাঁড়া ইউনিয়ন যুব লীগ কে বলেন নির্বাচনী প্রচরনায় সাঁড়া ইউনিয়ন যুব লীগ কে পিছিয়ে থাকলে চলবে না। প্রত্যেক নেতা কর্মী যে যার জায়গা থেকে নিজ নিজ বাড়ি সহ আশেপাশে আরো ২০ বাড়ির ভোটারদের কাছে যেতে হবে এবং তাদের কাছ থেকে ভোট চাইতে হবে । তাদের কে উন্নয়নের মার্কা, তাদের অধিকার আদায়ের মার্কা, সম্পর্কে বোঝাতে হবে।

তিনি আরো বলেন নিজেদের মধ্যে মনোমালিন্য দূর করে একযোগে নৌকার পক্ষে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।সাঁড়া ইউনিয়ন হলো আওয়ামী লীগের ভোট ব্যাংক। এই ইউনিয়নে আগামী ২৬ শে সেপ্টেম্বর ঈশ্বরদী উপজেলা সবচেয়ে বেশি ভোট নৌকা মার্কার পাওয়ার আশা করছি।এবং নৌকাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে হবে। সকল যুব লীগের নেতা দের ভোটের আগে ভোট কেন্দ্র গুলো পাহারা দিতে হবে এবং ভোট কেন্দ্র গুলোতে যাতে মানুষ নিরবিগ্নে ভোট দিতে পারে সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। এবং ৫ প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে প্রতিকেন্দ্রে ১০০ জন করে যুব লীগের নেতা কর্মীকে ভোরের নামাজ আদায় করে নৌকা বিজয় সুনিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত অবস্হান করতে হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ সাবেক ভিপি মরাদ আলী মালিথা। তিনি বলেন এই নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন, এই নির্বাচনের মধ্যেমে প্রমান করতে হবে জননেত্রী প্রধান মন্ত্রীর শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা বেশি না কমেছে। নির্বাচনের মাধ্যমে প্রমান করতে হবে বিএনপি অত্যাচারী স্বৈরশাসক দল,তারা মানুষের ভোটের অধিকার নষ্ট করেছে। তারা দেশের অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। দেশে লুটপাট রাহাজারি করে দেশের মানুষকে অতিষ্ঠ করেছে।

তাই তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুর আর্দেশের সৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস কে নেত্রী নৌকা প্রতিক তুলে দিয়েছে পাবনা ৪ আসন তথা ঈশ্বরদী – আটঘরিয়ার মানুষের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য। তিনি আরো বলেন তার মাধ্যমে নুরুজ্জামান বিশ্বাস তার মাধ্যমে একটি ম্যাচেজ দিয়েছেন ২৬ তারিখে নির্বাচনে বিজয়ী হলে সংসদে গিয়ে সাঁড়া ইউনিয়নের কথা সবার আগে বলবেন।

সাঁড়া একটি প্রাচীন শহর। এই সাঁড়া থেকে ঈশ্বরদী নামের উৎপত্তি। উত্তর বঙ্গের সকল যোগাযোগ, পন্য বাহি গাড়ি মালামাল এই অঞ্চল দিয়ে আনা হতো।এই অঞ্চল ছিল ব্যবসায়িক প্রাণ কেন্দ্র। প্রাচীন কালে সকল ব্যবস্হা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠে ছিল নদী কেন্দ্রীক। তিনি বলেন ঈশ্বরদীর করোনা বিএনপির হাবিব। তার কারনে আজ দলের নেতা কর্মীদের মধ্যে কোন্দল। তার কারনে বিএনপি আজ সুসংগঠিত নয়।তিনি একজন বারবার পরাজিত সৈনিক। তিনি আজ

,তিনি আরো বলেন কিছুদিন আগে তার মুখে দাড়ি ছিল, নির্বাচনের কারনে দাড়ি কেটে ফেলেছেন,নতুন রুপে নতুন কোন চমক দেখিয়েছেন । বহুরুপি নেতা রুপ চেঞ্জ করেছেন। তিরি আরো বলেন আওয়ামী লীগ ১ দিনে যা পারে বিএনপি ১ মাসে তাও পারে নাহ।

সাঁড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক রানা সরদার। তিনি বলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস চাচার নৌকা মার্কাকে আমরা বিপুল ভোটে বিজয়ী করবো। হাবীবের ভোট বাক্সকে শুন্য করে তাকে সাঁড়া ইউনিয়ন থেকে বিতারিত করবো, তার জামানত বাজেয়াপ্ত করেই ছাড়বো। তিনি বলেন ইউনিয়নের ৮০% ভোটারদের কাছে ভোট চাওয়া হয়েছে, বাকি ২০% ভোট, ভোটারদের কাছে গিয়ে আগামী কাল থেকে চাওয়া হবে। তিনি আরো বলেন তার ইউনিয়ন এবারো সর্বাধিক নৌকার ভোট পেয়ে উপজেলার ফাস্ট হবে তিনি দাবি রাখেন। তিনি আরো বলেন তার ইউনিয়নে যুবলীগ আজ সু – সজ্জিত। তিনি বলেন সাঁড়া বাসী নৌকার সাথে আছে এবং নৌকার পক্ষে কাজ করে যাবে।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাসের সুযোগ্য পুত্র তৌহিদুজ্জামান দোলন বিশ্বাস বলেন আপনারা জানেন পাবনা ৪ আসন ( ঈশ্বরদী – আটঘরিয়া) মিলে নির্বাচন। আমার বাবা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস কে জননেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার টিকিট দিয়েছেন।আপনারা সাঁড়া ইউনিয়ন বাসী আমার বাবাকে কখনো ফিরিয়ে দেন নি। সাঁড়া ইউনিয়ন থেকে বেপক ভোট পেয়েছেন। দোলন বিশ্বাস আরো বলেন তার আশা রাখেন যে রানা কাকুর হাত ধরে নৌকা মার্কাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন।